(বিএনপি কমিউনিকেশন) — ‘গ্যাসের দাম বাড়ানো’ সরকারের গণবিরোধী সিদ্ধান্ত বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এসময় তিনি গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসার দাবি জানান।

গ্যাসের দাম বৃদ্ধির গণবিরোধী সরকারী সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইস্টিটিউশন মিলনায়তনে বিএনপি আয়োজিত অবস্থান কর্মসূচির শেষে তিনি এ কথা বলেন। সকাল ১০ টায় এ অবস্থান কর্মসূচি শুরু’র ঘোষণা করেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

কর্মসূচি সকাল ১০টা থেকে ১২ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয়। একই সময় সারাদেশে এ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি সরকারের কোন যৌক্তিক সিদ্ধান্ত নয়। এমন কোন পরিবেশ সৃষ্টি হয়নি যেকারণে গ্যাসের দাম বাড়াতে হবে। গ্যাস কোম্পানিগুলোর মুনাফা বৃদ্ধির জন্যই দাম বাড়ানো হয়েছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

বর্তমান সরকারের সিদ্ধান্তগুলো দেশের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে তিনি বলেন, জনগণের কাছে সরকারের কোন জবাবদিহিতা নেই। সেকারণে একের পর এক গণবিরোধী সিদ্ধান্ত নিচ্ছে। সরকার যেসকল চুক্তি করেছে সেগুলোও দেশের বিরুদ্ধ চুক্তি এবং গণবিরোধী।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, জনগণের সরকারের প্রতিষ্ঠার দাবি নিয়ে জনগণের কাছে যেতে হবে। কারণ, বর্তমান সরকার বাংলাদেশের জনগণের পক্ষে নয়। তাই নির্বাচনের মধ্যে দিয়ে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠিত করতে হবে।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য বিএনপি মহাসচিব আরো বলেন, আমাদের জেগে উঠতে হবে। স্বোচ্চার হতে হবে। প্রতিবাদ করতে হবে। সরকারকে বাধ্য করতে হবে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিয়ে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠিত করতে।

তিনি অভিযোগ করেন, একজন মন্ত্রীর উস্কানিতে শ্রমিকরা ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে। আর এ কারণে একজন শ্রমিকের মারা গেছেন।

বিএনপি ও খালেদা জিয়াকে বাদ দিয়ে বাংলাদেশে কোন নির্বাচন হবে না বললেও সরকারের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন মির্জা ফখরুল।

খালেদা জিয়ার সংগ্রাম চলছে চলবেই, গণতন্ত্রের সংগ্রাম চলছে চলবেই, জ্বালো রে জ্বালো আগুন জ্বালো খুনি হাসিনার গদিতে আগুন জ্বালোও এক সাথে, গ্যাসের দাম বাড়লো কেনো খুনি হাসিনা জবাব দে, বিদ্যুতের দাম বাড়লো কেনো খুনি হাসিনা জবাব দে, অবৈধ সরকার মানি না মানবো না, এই মূহুর্তে দরকার খালেদা জিয়ার সরকারসহ বিভিন্ন স্লোগানে মিলনায়তন এলাকা মুখরিত করে তুলে নেতাকর্মীরা।

অবস্থা কর্মসূচিতে বিএনপি নেতা ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, বেগম সেলিমা রহমান, এ জেড এম জাহিদ হোসেন, রুহুল কবির রিজভী আহমেদ, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, শামা ওবায়েদ, সৈয়দ এমরান সাহেল প্রিন্স, আব্দুস সালাম আজাদ, তাইফুল ইসলাম টিপুসহ যুবদল, ছাত্রদল, স্বেচ্ছাসেবক, মহিলা দল ও ঢাকা মহানগর বিএনপির নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে মঙ্গলবার রাজধানী নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে রুহুল কবির রিজভী আহমেদ এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।