শওকত মাহমুদ

কানাডীয় সরকার বিএনপিকে সন্ত্রাসী দল মনে করে না – এই চাঞ্চল্যকর তথ্যটি জানিয়েছেন কানাডা প্রবাসী অনুসন্ধানী সাংবাদিক মোহাম্মদ আল বোখারী। আজ বাংলাদেশের দৈনিক ‘আমাদের অর্থনীতি’ পত্রিকায় প্রকাশিত এক রিপোর্টে ফ্যাসিবাদী সরকারের অপপ্রচারে দারুণ এক চোট দিলেন তিনি। পড়ুন – কানাডার প্রধানমন্ত্রী থেকে রাষ্ট্রদূত কেউ জানাননি বিএনপি ‘সন্ত্রাসী দল’

গত ২৫ জানুয়ারি কানাডার একটি ফেডারেল কোর্ট এক রায়ে বাংলাদেশের এক নাগরিকের শরণার্থীর আবেদন প্রত্যাখ্যান করে এবং সেখানে বিএনপি ও আওয়ামীলীগকে সন্ত্রাসী দল হিসেবে উল্লেখ করে বলে খবরে প্রকাশ হয়। আবেদনকারী নিজেকে জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের কর্মী হিসেবে উল্লেখ করে এবং বিএনপি সন্ত্রাসী তৎপরতা চালায় এই কথাও তার আবেদনে ছিল। ঐ রায়টি ছিল একজন শরণার্থীর আবেদন মঞ্জুর সংক্রান্ত যেখানে বিচারক নন বরং শরণার্থী অবিশ্বাস্যজনক ও আত্মঘাতী প্রক্রিয়ায় নিজের দলকে একটি সন্ত্রাসী দল বানিয়েছে। এই আবেদনকারী কোনও ভাবেই বিএনপির সাথে যুক্ত নয় বা ছিলও না। যা হোক এরপর আওয়ামী-মিডিয়া প্রচারে নেমে পড়ে যে বিএনপি যে সন্ত্রাসী দল কানাডার আদালতের রায়ে প্রমাণিত হয়ে গেছে। নিজেদের কথাটি চেপে যায়। আসলেই বিএনপিকে কানাডীয়রা সন্ত্রাসী দল মনে করে কি না তা নিশ্চিত হতে  মোহাম্মদ আল বোখারী গত কয়েক দিন ধরে কানাডার প্রধানমন্ত্রী, এটর্নি জেনারেল, জননিরাপত্তা মন্ত্রণালয়, অভিবাসন মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশের কানাডিয়ান রাষ্ট্রদূতের কার্যালয়, কানাডার ফেডারেল কোর্টের প্রধান বিচারপতির প্রশাসনিক কর্মকর্তা ও মিডিয়া বিষয়ক লিগ্যাল কাউন্সিলের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। এতে জননিরাপত্তা বিষয়ক মন্ত্রীর মুখপাত্র বোখারীকে পরামর্শ দেন মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে ৫৩টি সন্ত্রাসী সংগঠনের তালিকা দেখার জন্য। তাতে বিএনপির কোনও নাম নেই। তাছাড়া ঐ কেইসে বিএনপি কোনও পক্ষই ছিল না।

আগেও দেখা গেছে, পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই বেলুচিস্থান ন্যাশনালিস্ট পার্টি ( বিএনপি)-কে নির্বাচনের সময় টাকা দিয়েছে মর্মে খবর প্রকাশ হলে দিল্লিতে কর্মরত দুই বাংলাদেশী সাংবাদিক অপপ্রচার শুরু করে যে, আইএসআই বিএনপি ( বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট পার্টি )-কে টাকা দিয়েছে। বাংলাদেশী সরকারি সংস্থা বাসসও এই মিথ্যা খবরটি বিএনপির বিরুদ্ধে প্রচার করেছিল। পরে তা থিতিয়ে যায়। বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ইন্টারপোলকে ভুয়া তথ্য দিয়ে একবার রেড এলার্ট জারি করা হয়েছিল, কিন্তু অনুসন্ধানের পর ইন্টারপোল সে রেড এলার্ট প্রত্যাহার করে নেয়।

আর কত? বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ রাজনৈতিক দল বিএনপি বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাতে চালাতে আওয়ামীলীগ নিজেই অভিশপ্ত হয়ে পড়েছে। আর অত্যাচারের অভিশাপ তো আছেই।

সুরা হুজুরাত আয়াত ৬-এ সর্বশক্তিমান আল্লাহ্ বলেছেন, “হে বিশ্বাসীগণ! যদি কোন ফাসেক তোমাদের কাছে কোনও খবর আনে তোমরা তা পরীক্ষা করে দেখবে, যাতে অজান্তে তোমরা কোনও সম্প্রদায়কে আঘাত না করে বসো এবং পরে তোমাদের কাজের জন্য তোমরা লজ্জা না পাও।”