(বিএনপি কমিউনিকেশন) — বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, বিএনপি’র সাবেক মহাসচিব, বরেণ্য রাজনীতিবিদ কে এম ওবায়দুর রহমান ছিলেন গণমুখী জাতীয় নেতা।

স্বাধীনতাযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক কে এম ওবায়দুর রহমানের ১০ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এক বাণীতে এ কথা বলেন।

বাণীটি নিচে তুলে ধরা হলো –

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

“বিএনপি’র সাবেক মহাসচিব, স্বাধীনতাযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, ৬০ এর দশকের সাবেক ছাত্রনেতা এবং দেশের বরেণ্য রাজনীতিবিদ কে এম ওবায়দুর রহমানের মৃত্যুবার্ষিকীতে আমি তাঁর বিদেহী আত্মার প্রতি জানাচ্ছি গভীর শ্রদ্ধা। বাংলাদেশে মরহুম কে এম ওবায়দুর রহমান একজন গণমুখী জাতীয় নেতা হিসেবে সবার নিকট সমাদৃত ছিলেন। যোগ্য নেতৃত্ব দিয়ে তিনি দলকে সুসংগঠিত ও শক্তিশালী করতে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছেন। ছাত্রজীবন থেকে শুরু করে পরবর্তীতে জাতীয় রাজনৈতিক জীবনে স্বাধিকার, স্বাধীনতা ও গণতন্ত্র তথা সকল আন্দোলন সংগ্রামে সোচ্চার থেকে তিনি আজীবন দেশের মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকারের পক্ষে নিজেকে নিবেদিত রেখেছিলেন। মরহুম কে এম ওবায়দুর রহমান মনেপ্রাণে গণতন্ত্রী ছিলেন এবং গণতন্ত্রে বহুমত সহিষ্ণুতার ঐতিহ্যকে মান্য করতেন। তিনি ছিলেন বহুদলীয় গণতন্ত্রের একনিষ্ঠ অনুসারী। স্বাধীনতা যুদ্ধে অন্যতম সংগঠকের ভূমিকা পালন করে তিনি আমাদের জাতীয় ইতিহাসে স্থান করে নিয়েছেন। তাঁর অনুসৃত পথ বর্তমান প্রজন্মকে অনুপ্রাণিত করবে। স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের জাতীয়তাবাদী দর্শণ ও আদর্শকে বুকে লালন করে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে স্বৈরাচারের কবল থেকে গণতান্ত্রিক অধিকার আদায়ের প্রত্যেকটি আন্দোলন সংগ্রামে কে এম ওবায়দুর রহমানের এর অবদান দল ও দেশবাসী চিরদিন শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করবে।

আমি তাঁর বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি।”