(বিএনপি কমিউনিকেশন) — বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, নির্দলীয় সরকারের অধীনেই আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন হতে হবে। সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরসহ অসংখ্য দলীয় নেতাকর্মীকে ক্ষমতাসীনরা মিথ্যা মামলায় জেলে রেখেছে। চেয়ারপারসন বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের সকল নেতাকর্মীর বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়াতে নির্দেশনা দিয়েছেন।

নেত্রকোনা জেলার মোহনগঞ্জ-খালিয়াজুরী উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বন্যাদুর্গত অসহায় মানুষের পাশে সমবেদনা জানানোর জন্য নেত্রকোনায় আগমন উপলক্ষে জেলা শহরের ছোটবাজারস্থ দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভায় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর আরো বলেন, ক্ষমতাসীনদের লাগামহীন লুটপাট ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে জনগণের প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক এমপি বীর মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ উদ্দিন খানের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক ডা. আনোয়ারুল হকের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বক্তৃতা করেন ময়মনসিংহ বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ ইমরান সালেহ প্রিন্স। এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা সৈয়দ আলমগীর, সাবেক এমপি গোলাম রব্বানী, রাবেয়া আলী, জেলা বিএনপির সহসভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আবদুল মান্নান তালুকদার, অ্যাডভোকেট নূরুজ্জামান নূরু, অ্যাডভোকেট মাহফুজুল হক, আবু তাহের তালুকদার, ড. আরিফা জেসমীন নাহীন, সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম মনিরুজ্জামান দুদু, যুগ্ম সম্পাদক সালাউদ্দিন খান মিলকী প্রমুখ। আলোচনা শেষে বিএনপি মহাসচিব সড়কপথে মোহনগঞ্জের উদ্দেশে দলীয় কার্যালয় ত্যাগ করেন।

নেত্রকোনায় বন্যাদুর্গতদের দেখতে যাওয়ার পথে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে ময়মনসিংহের পথে পথে সংবর্ধনা দিয়েছে বিএনপি নেতাকর্মীরা। শনিবার সকালে ময়মনসিংহ জেলার বেশ কয়েকটি স্থানে দেয়া এ সংবর্ধনা ও পথসভায় দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বক্তব্য রাখেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এ সময় শম্ভুগঞ্জ মোড় এলাকায় পঙ্গু যুবদল কর্মী মো. সোহাগ মিয়ার সাথে কথা বলে তাকে পাঁচ হাজার টাকা আর্থিক সহায়তা দেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এ সময় শ শ দলীয় নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। জানা যায়, সকাল সোয়া ৯টার দিকে নগরীর মাসকান্দা বাইপাস মোড় এলাকায় এসে পৌঁছান বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এ সময় তার সাথে ছিলেন বিএনপির বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স। পরে সেখানে তাকে ফুলেল শুভেচ্ছায় সংবর্ধিত করেন ময়মনসিংহ দক্ষিণ জেলা বিএনপির সভাপতি ও বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা সাবেক জ্বালানী প্রতিমন্ত্রী একেএম মোশাররফ হোসেন এফসিএ, সাধারণ সম্পাদক আবু ওয়াহাব আকন্দ, জেলা বিএনপির সহসভাপতি ফখরুদ্দিন আহম্মেদ বাচ্চু, ত্রিশালের উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ জয়নাল আবেদীন, মুক্তাগাছার উপজেলা চেয়ারম্যান জাকারিয়া হারুন, ফুলবাড়ীয়ার উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাড. আজিজুর রহমান, বিএনপি নেতা রতন আকন্দ, শমশের আলী, আশিকুল ইসলাম, শেখ আজিজ, কেন্দ্রীয় যুবদল নেতা লিটন আকন্দ, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক খন্দকার মাসুদ, ছাত্রদল নেতা শামসুল আলম উজ্জল প্রমুখ। এ সময় দলীয় নেতাকর্মীরা মহাসড়কের সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে মির্জা ফখরুল ইসলামকে শুভেচ্ছা জানান। পরে সাড়ে ৯টার দিকে নগরীর পাটগুদাম ব্রিজ মোড় এলাকায় বিএনপি মহাসচিবকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি জাকির হোসেন বাবলু, নগর বিএনপির সভাপতি অধ্যাপক শফিকুল ইসলাম, জেলা যুবদলের সভাপতি শামীম আজাদ, শ্রমিক দল সভাপতি আবু সাঈদ, সাধারণ সম্পাদক মফিদুল ইসলাম মোহন, স্বেচ্ছাসেবক দল সভাপতি শহীদুল আমীন খসরু, জেলা যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক অ্যাড. দিদারুল ইসলাম রাজু, কোতোয়ালি যুবদলের আহবায়ক শহীদুল ইসলাম, যুবদল নেতা রমজান আলী প্রমুখ।

সকাল ১০টার দিকে নগরীর শম্ভুগঞ্জ এলাকায় ফের মহাসচিবকে সংবর্ধনা দেন জেলা আইনজীবী ফোরাম ও উত্তর জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. নূরুল হক, জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাড.  ড. মীর মিজানুর রহমান, উত্তর বিএনপি নেতা শহীদ চেয়ারম্যান, আলী আকবর আনিস, অ্যাড. শাজাহান কবীর সাজু প্রমুখ।

এরপর নেত্রকোনা মহাসড়কের গৌরীপুর উপজেলার শ্যামগঞ্জ এলাকায় বিএনপি মহাসচিবকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্যইঞ্জিনিয়ার এম ইকবাল হোসাইন ও নেত্রকোনা জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক তাহের তালুকদার। এ সময় তাদের সাথে ছিলেন উত্তর জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক শামছুল হক শামছু, সাংগঠনিক সম্পাদক মাহফুজুর রহমান মাহফুজ, উত্তর জেলা তাঁতীঁদলের সাধারণ সম্পাদক শাজাহান কবীর হীরা প্রমুখ। পরে শ্যামগঞ্জের কুমুদগঞ্জ এলাকায় বিএনপি মহাসচিবকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান ময়মনসিংহ উত্তর জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক ও গৌরীপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আহাম্মেদ তায়েবুর রহমান হিরন। এ সময় তার সাথে ছিলেন উপজেলা বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীবৃন্দ।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে পৃথক ফুলেল সংবর্ধনা দিয়েছে ভালুকা উপজেলা বিএনপি ও অঙ্গসংগঠন। শনিবার সকালে নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ অঞ্চলের হাওর এলাকায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের দেখতে যাওয়ার পথে ভালুকা অতিক্রমকালে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে এ সংবর্ধনা দেন দলীয় নেতাকর্মীরা। পৃথক সংবর্ধনায় কয়েক হাজারো নেতাকর্মী স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত করে তোলে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক। ‘খালেদা জিয়া ভয় নাই রাজপথ ছাড়ি নাই’ ‘মির্জা ফখরুলের আগমন শুভেচ্ছা স্বাগতম’ ইত্যাদি স্লোগানে স্লোগানে ভোরের সূর্য ওঠার পরেই রাজপথ প্রকম্পিত হয়ে ওঠে। বিএনপি মহাসচিব সকাল ৮টার কিছু পরে ভালুকা অতিক্রম করেন। এ সময় মহাসড়কের বাসস্ট্যান্ড চত্বরগুলো দলীয় নেতাকর্মীদের পদচারণা ও মিছিলে মিছিলে মুখরিত হতে থাকে। বিএনপি মহাসচিব ভালুকা অতিক্রমকালে নতুন বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন দলীয় কার্যালয়ের সামনে জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ মুহাম্মদ মোর্শেদ আলম, উপজেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক সালাউদ্দিন আহম্মেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মজিবর রহমান মজু, দফতর সম্পাদক গোলজার হোসেন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এমএ হামিদ ক্কারী, হাতেম আলী খান, আ. ছালাম, আইয়ুব আলী কমান্ডার, হাবিবুর রহমান হাবি, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আ. আউয়াল সরকার, তাহের উদ্দিন ফকির, আমিনুল ইসলাম পাপ্পু, নুরুল হক মন্ডল, জাহাঙ্গীর মো. আদেল, রুহুল আমীন রুহুল, খোকা মিয়া, কায়সার আহম্মেদ কাজল, আব্দুর রউফ, সৌমিক হাসান সোহাগ, মার্সেল, সজিব, আহসান, আতিক প্রমুখ নেতৃবৃন্দ ফুলের তোড়া দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। এর আগে মহাসড়কের পুরাতন বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন দলীয় কার্যালয়ের সামনে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম, পৌর বিএনপির সভাপতি গিয়াসউদ্দিন আহম্মেদ, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক হাদিসুর রহমান হাদিস, উপজেলা বিএনপির সহসভাপতি হাবিবউল্যাহ চৌধুরী, আইয়ুব আলী সরকার, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান শাখাওয়াত হোসেন, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান কাইয়ুম সরকার রিপন, ফরিদ উদ্দিন সরকার, রহিম আকন্দ, রকিবুল হাসান রাশেল, ছাইদুল ইসলাম, মতিউর রহমান মিল্টন, আসাদউল্লাহ চৌধুরী ধ্রুব, মেজবাহ উদ্দিন মাসুদ, মাসুদ রানা, আমিনুল ইসলাম, তোজাম্মেল হক বকুল, মোহাইমিনুল ইসলাম, লুৎফর রহমান খান সানি প্রমুখ। বিএনপি মহাসচিব পৃথক সংবর্ধনায় নেতাকর্মীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন এবং গাড়ি থামিয়ে সকলকে শুভেচ্ছা জানান।

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে গতকাল শনিবার সকাল ১১টায় নেত্রকোনা জেলার বন্যাদুর্গত এলাকা পরিদর্শন ও ত্রাণসামগ্রী বিতরণের উদ্দেশে ময়মনসিংহের তারাকান্দার  উপজেলা ওপর দিয়ে যাওয়ার সময় ফুলপুর এবং তারাকান্দা উপজেলা বিএনপি ও তার সহযোগী অঙ্গসংগঠনের বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী সাবেক এমপি শাহ শহীদ সারোয়ারের উদ্যোগে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে ফুলের তোড়া দিয়ে শুভেচ্ছা জানান এবং শত শত মোটরসাইকেল শোভাযাত্রাসহ তারাকান্দার গাছতলা বাজার হতে কাশিগঞ্জ বাজারে অপেক্ষারত নেতাকর্মীদের সাথে তিনি মিলিত হন। এ সময় বিএনপি মহাসচিব নেতাকর্মীদের ধন্যবাদ এবং অভিনন্দন জানিয়ে নেত্রকোনার উদ্দেশে রওনা হন। এ সময় উপস্থিল ছিলেন ফুলপুর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শামছুল আলম, এমদাদ হোসেন খান, আলহাজ আবুবকর সিদ্দিক, মহিবুল হক টুটুল এবং ময়মনসিংহ উত্তর জেলা বিএনপির সদস্য মুজিবুল হক (মজি) চেয়ারম্যান, শামছুল হুদা তালুকদার চেয়ারম্যান, মাসুদ রানা খান, কাজী আব্দুল বাতেন, শামীম তালুকদার, ময়মনসিংহ উত্তর তৃণমূল দলের আহ্বায়ক আমিনুল হক রোমন, ইবনে কাশেম মাস্টার, সার্জেন্ট রফিক, ডা. রফিকুল ইসলাম, আ. রসিদ সরকার, হিরা, মাহাবুব আলম, কামাল মাস্টার, ডা. আজিজুল হক, ফজলু সরকার, রাশিদুল, শহিদুল ইসলাম, রফিক মাস্টার, হাসান মাস্টার, শাহাদাদ, মোস্তফা যুবদলের আল আমিন, স্বপন, মোস্তফা, ছাত্রদলের মোজাম্মেল হক মন্ডল, নিশাদ, সাদ্দাম হোসেন, নজরুল ইসলাম আজাদ, মাহাবুব, আ. মোতালেব, তৃণমূলের আহবায়ক শমশের, মোজাম্মেল হক প্রমুখ।