(বিএনপি কমিউনিকেশনস)  — বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আদর্শের সঙ্গে একমত হলে যেকোনো ব্যক্তি বা সংগঠন ২০-দলীয় জোটে যোগ দিতে পারে।

বিএনপিপন্থী চিকিৎসকদের সংগঠন ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ড্যাব) ২৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সমাধি জিয়ারত শেষে ফখরুল এ মন্তব্য করেন।

গত বুধবার বিকল্পধারা বাংলাদেশের সভাপতি এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর বাসায় কয়েকটি সংগঠনের জ্যেষ্ঠ নেতারা বৈঠক করেন। সেই বৈঠকের প্রতিক্রিয়ায় পরের দিন বৃহস্পতিবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল বলেছিলেন, ‘আমরা যেকোনো উদ্যোগ, যা দেশের পক্ষে, জনগণের পক্ষে, গণতন্ত্রের পক্ষে, তাকে আমরা সব সময় স্বাগত জানিয়েছি। আমরা এখনো মনে করি, যারাই এই অবৈধ অনৈতিক সরকার, নির্যাতনকারী সরকার, জুলুমবাজ সরকার—তাদের বিরুদ্ধে অবস্থান গ্রহণ করবে, আমরা অবশ্যই তাদের স্বাগত জানাব।’

রোববার রাজধানীর চন্দ্রিমা উদ্যানে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘যেকোনো ব্যক্তি বা সংগঠন এই আমাদের জোটের সঙ্গে আসতে পারেন, যদি তারা আমাদের সঙ্গে একমত হন।’

‘অন্যদিকে গণতন্ত্রকে রক্ষার জন্য, গণতন্ত্রকে পুনরুদ্ধার করবার জন্য, এই সরকারের যে অগণতান্ত্রিক আপনার দমননীতি চলছে, তার বিরুদ্ধে যদি অন্যান্য রাজনৈতিক দল জোট গঠন করে, তারা… রাজনীতি করতে চায়, সংগ্রাম করতে চায় গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্য, আন্দোলন করতে চায়, সেখানে আমাদের সম্পূর্ণ সম্মতি এবং আমাদের আপনার যে সমর্থন, সেটা থাকবে।’

বেহাল রাস্তার মতো সেতুমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের নিজেও এখন বেহাল হয়ে গেছেন বলেও মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

ফখরুল বলেন, ষোড়শ সংশোধনী নিয়ে অর্থমন্ত্রীর বক্তব্যকে আমরা আমলে নেয়নি। আর বেহাল রাস্তার মতো সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের নিজেও এখন বেহাল হয়ে গেছেন।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ যখনই ক্ষমতায় এসে তখনই হত্যাযজ্ঞে মেতে উঠে। ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা বিশ্বজিৎকে নৃসংশভাবে হত্যা করেছে। আমি এর বড় বিচার প্রত্যাশা করছি এবং এখনও যারা গ্রেফতার হয়নি তাদের গ্রেফতার দাবি করছি।

সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে মির্জা ফখরুলের সঙ্গে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীসহ দলটির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।