(বিএনপি কমিউনিকেশন) —  বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জনাব তারেক রহমান শুক্রবার, এপ্রিল ১৩, ২০১৮, পার্বত্য চট্রগ্রামের বাংলাদেশী  বিভিন্ন নৃ-গোষ্ঠীর প্রধান সামাজিক উৎসব ও নববর্ষ উপলক্ষে সংবাদ মাধ্যমে পাঠানো বাণীতে বলেছেন, পাহাড়ী বিভিন্ন নৃ-গোষ্ঠী জনগণের ঐতিহ্য, কৃষ্টি, সংস্কৃতি, ইতিহাস বাংলাদেশের জাতীয় ইতিহাস ও সংস্কৃতির অবিচ্ছেদ্য অংশ। যা আমাদের ঐতিহ্যকে গৌরবময়, প্রাচুর্য্যময় ও সৌন্দর্য্যমন্ডিত করেছে।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান প্রদত্ত বাণীর পূর্ণপাঠ নিচে দেয়া হলো  — 

বাণী

“পার্বত্য অঞ্চলবাসী বিভিন্ন নৃ-গোষ্ঠীর প্রধান সামাজিক উৎসব বিঝু, সাংগাই, বৈসুক , বিষু ও বিহু এবং নববর্ষ উপলক্ষে সব সম্প্রদায়ের প্রতি আমার আন্তরিক শুভেচ্ছা অভিবাদন জানাচিছ। পাহাড়ী বিভিন্ন নৃ-গোষ্ঠী জনগণের ঐতিহ্য, কৃষ্টি, সংস্কৃতি, ইতিহাস বাংলাদেশের জাতীয় ইতিহাস ও সংস্কৃতির অবিচ্ছেদ্য অংশ। যা আমাদের ঐতিহ্যকে গৌরবময়, প্রাচুর্য্যময় ও সৌন্দর্য্যমন্ডিত করেছে। বাংলাদেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি সারা বিশ্বে দেশের মর্যাদা এক উজ্জলতর ভিন্নমাত্রা লাভ করেছে। মানুষে-মানুষে সম্প্রীতি ও মিলনের অমিয় বাণী মিশে আছে আমাদের লোকজ ঐতিহ্যের মধ্যে। এদেশের সাধকেরা সেই বাণীই প্রচার করেছেন।

এদেশের বিভিন্ন নৃ-গোষ্ঠী ও সম্প্রদায়সহ সকল নাগরিকের সমান অগ্রগতি, বিকাশ, নিরাপত্তা ও সংবিধান বর্ণিত মৌলিক অধিকারের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে আমরা দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। বাংলাদেশের ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সকল সম্প্রদায় ও জনগণের নিজেদের পার্বণ ও উৎসব জাতীয় উৎসবেরই অংশ। এই উৎসবের দিনগুলো আনন্দে ভরে উঠুক আর বাংলা নববর্ষ সবার জন্য অনাবিল শান্তি ও সুখের হোক-এই কামনা রইল। ”